জন্ম নিবন্ধনসংশোধন

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন ২০২৩ সালের আপডেট সব তথ্য, কিভাবে জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য সংশোধন করা যায় এবং সংশোধনের জন্য কিভাবে অনলাইনে আবেদন করবেন এ সম্পর্কে বিস্তারিত এই লেখাটিতে আলোচনা করা হয়েছে।

সংশোধন আবেদন করার পূর্বে যা জেনে রাখা জরুরি

  • সার্ভার সমস্যা জনিত কারণে বাইরে থেকে অনেকেই সংশোধন আবেদন করতে পারবেন না। এই ক্ষেত্রে ভালো হবে নিকটস্থ কার্যালয় গিয়ে কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করে তাদের মাধ্যমে আবেদন করা।
  • নতুন নিয়ম অনুযায়ী একটি জন্ম নিবন্ধন সর্বোচ্চ চার থেকে পাঁচবার সংশোধন করা যাবে
  • সম্পূর্ণ নাম সংশোধন করা সম্ভব নয় এ ক্ষেত্রে এফিডেভিট করার দরকার হবে
  • নাম কিংবা জন্ম তারিখ সংশোধন করার ক্ষেত্রে অবশ্যই সঠিক প্রমাণ পত্র দাখিল করতে হবে
  • সংশোধনের ক্ষেত্রে অবশ্যই সঠিক প্রমাণ পত্র দাখিল করতে হবে। না হলে আবেদন বাতিল হবে।
  • সংশোধন ফি অনলাইনে এ চালানোর মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে, এবং চালানোর কপি জমা দিতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার প্রয়োজনীয়তা

  • জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট, শিক্ষাগত যোগ্যতা সনদ, ড্রাইভিং লাইসেন্স ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ দলিলে জন্ম নিবন্ধনের তথ্য ব্যবহার করা হয়। তাই জন্ম নিবন্ধনে ভুল থাকলে তা এইসব দলিলেও ভুল হয়ে যায়।
  • জন্ম নিবন্ধনে ভুল থাকলে তা ব্যক্তির পরিচয় নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।
  • সরকারি চাকরি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি, বিয়ে, ভোটার হওয়া ইত্যাদি ক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধনের তথ্য প্রয়োজন হয়। তাই জন্ম নিবন্ধনে ভুল থাকলে তা এইসব ক্ষেত্রে সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে।

আর তাই কোন ডকুমেন্ট সংশোধন কিংবা নতুন করে আবেদন করার জন্য অবশ্যই জন্ম নিবন্ধন ভুল থাকলে সেটি সংশোধন করে নিতে হবে

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

  • জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য অনলাইনে নির্ধারিত ফর্মে আবেদন করতে হবে।
  • আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ এবং সেগুলো দাখিল করতে হবে
  • অনলাইন এ চালানের মাধ্যমে সংশোধন আবেদন ফি পরিশোধ করতে হবে। এবং আবেদন পত্র প্রিন্ট করে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে
  • রেজিস্টার কার্যালয় আবেদন পত্রের প্রিন্ট কপি এবং প্রয়োজননীয় কাগজপত্র দাখিল করতে হবে, তারা আবেদনটি পর্যালোচনা করবেন এবং সব ঠিক থাকলে সেটি গ্রহণ কিংবা বাতিল করতে পারেন।
  • আবেদন গ্রহণ হলে স্ব স্ব নিবন্ধন কার্যালয় এগিয়ে জন্ম নিবন্ধনের নতুন সনদ সংগ্রহ করতে হবে

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন পদ্ধতি

  • bdris.gov.bd/br/correction এই লিংকে ভিজিট করুন।
  • জন্ম নিবন্ধন নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে সার্চ করুন।
  • সংশোধিত তথ্য সঠিকভাবে দিয়ে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট Upload করুন।
  • আবেদনটি সাবমিট করুন। এবং অনলাইনে এ চালানোর মাধ্যমে সংশোধন আবেদন ফি পরিশোধ করুন
  • আবেদনের প্রিন্ট কপি ও প্রয়োজনীয় প্রমাণপত্র সংশ্লিষ্ট জন্ম নিবন্ধন অফিসে জমা দিন।

Bdris.gov.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে পূর্বের নিয়মে জন্ম নিবন্ধন সনদ সংশোধনের জন্য আবেদন করা যায় না। সম্প্রতি এই ওয়েবসাইটটির সিস্টেম আপগ্রেডের ফলে নুতন নিয়মে আবেদন করতে হবে। নতুন নিয়মে আবেদন করার পদ্ধতি সম্পর্কে নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

অনুগ্রহ করবো – জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য আবেদন করার পূর্বে অবশ্যই এই লেখাটি সম্পূর্ণ ভালোভাবে দেখবেন। লেখাটির মধ্যে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উল্লেখ করা আছে, যেগুলো উপেক্ষা করলে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের আবেদনটি ক্যান্সেল হতে পারে।

১.জন্ম নিবন্ধন যাচাই

প্রথমে https://bdris.gov.bd/ এই লিংকে ক্লিক করে জন্ম নিবন্ধন সনদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। তারপরে মেনুবার থেকে “জন্ম নিবন্ধন” মেনু থেকে “জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন” অপশনটিতে প্রবেশ করুন।

এরপরে উপরের ছবির মত একটি পেজে নিয়ে আসা হবে। এখান থেকে প্রথমে আপনাদের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ বসিয়ে, নিচে থাকা ক্যাপচাটি সঠিকভাবে পূরণ করে “অনুসন্ধান” বাটনে ক্লিক করতে হবে।

কিছু সময়ের মধ্যে নিচে দেখতে পাবেন, আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের সকল তথ্য চলে আসবে। সবকিছু ঠিক থাকলে ডান দিকে থাকা “নিশ্চিত করুন” বাটনে ক্লিক করবেন। তারপরে কোন ধরনের কনফার্মেশন প্রয়োজন হলে “কনফার্ম” করে দিবেন।

অনুগ্রহ করবো – জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য আবেদন করার পূর্বে অবশ্যই এই লেখাটি সম্পূর্ণ ভালোভাবে দেখবেন। লেখাটির মধ্যে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উল্লেখ করা আছে, যেগুলো উপেক্ষা করলে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের আবেদনটি ক্যান্সেল হতে পারে।

১.জন্ম নিবন্ধন যাচাই

প্রথমে https://bdris.gov.bd/ এই লিংকে ক্লিক করে জন্ম নিবন্ধন সনদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। তারপরে মেনুবার থেকে “জন্ম নিবন্ধন” মেনু থেকে “জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন” অপশনটিতে প্রবেশ করুন।

এরপরে উপরের ছবির মত একটি পেজে নিয়ে আসা হবে। এখান থেকে প্রথমে আপনাদের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্ম তারিখ বসিয়ে, নিচে থাকা ক্যাপচাটি সঠিকভাবে পূরণ করে “অনুসন্ধান” বাটনে ক্লিক করতে হবে।

কিছু সময়ের মধ্যে নিচে দেখতে পাবেন, আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদের সকল তথ্য চলে আসবে। সবকিছু ঠিক থাকলে ডান দিকে থাকা “নিশ্চিত করুন” বাটনে ক্লিক করবেন। তারপরে কোন ধরনের কনফার্মেশন প্রয়োজন হলে “কনফার্ম” করে দিবেন।

২.সংশোধিত তথ্য যুক্ত করুন

প্রথমেই জানিয়ে রাখি, বর্তমানে আপনারা একটি জন্ম নিবন্ধন সর্বমোট ৭ বার সংশোধন করতে পারবেন। জন্ম নিবন্ধন সনদের জন্ম তারিখ ১ বার পরিবর্তন করতে পারবেন। এবং জন্ম নিবন্ধন সনদের নাম পরিবর্তন করা সম্ভব নয়। তবে নামের মধ্যে কোন ভুল থাকলে তা ১ বার সংশোধন করা যাবে

এই পেইজে নিয়ে আসার পরে, এখান থেকে আমাদের সংশোধিত তথ্যগুলো সংযুক্ত করতে হবে। “সংশোধিত তথ্য নির্বাচন” এর “বিষয়” অপশন থেকে আপনি কি ধরনের তথ্য সংশোধন করতে চান তা সিলেক্ট করবেন।

তারপরে “চাহিত সংশোধিত তথ্য” বক্সে, সংশোধিত তথ্য বসিয়ে দিবেন। তথা আপনি যদি নাম সংযোজন করতে চান তাহলে আপনার সঠিক নামটি এখানে বসিয়ে দিবেন। তারপরে “সংশোধনের কারণ” থেকে, কি কারনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে চান তা সিলেক্ট করুন।

আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদে যদি একাধিক ভুল থাকে, তাহলে সব ভুলগুলো একসাথে সংশোধিত করতে পারবেন। বারবার সংশোধন না করে একবার আবেদনের মাধ্যমে সব ভুলগুলো একসাথে সংশোধন করা শ্রেয়।

একাধিক ভুল সংশোধনের জন্য “+আরো তথ্য সংযোজন করুন” বাটনে ক্লিক করুন। তারপরে উপরের সংশোধিত তথ্য নির্বাচনের মত আরও একটি ফরম আসবে, একইভাবে ফর্মটি পূরণ করুন। এভাবে করে আপনি যতগুলো তথ্য সংশোধন করতে চান, আলাদা আলাদা ফর্ম নিয়ে বিষয়, চাহিত সংশোধিত তথ্য, সংশোধনের কারণ উল্লেখ করুন।

তারপরে আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন এর ঠিকানা পরিবর্তন করতে চান তাহলে, এই পেজ থেকে সিলেক্ট করবেন। যদি পূর্বের ঠিকানা রাখতে চান তাহলে জন্ম নিবন্ধন সনদ অনুযায়ী পূর্বের ঠিকানা সিলেক্ট করে দিবেন। এভাবে করে জন্মস্থানের ঠিকানা, স্থায়ী ঠিকানা ও বর্তমান ঠিকানা সিলেক্ট করুন।

৩.প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস সংযুক্ত করুন

যথাযথভাবে সংশোধিত তথ্য বসিয়ে নিচে এসে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টগুলো সংযুক্ত করতে হবে। আপনার সংশোধনের ধরন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টগুলো এখানে আপলোড করবেন। কোন ধরনের সংশোধনের জন্য কি ধরনের ডকুমেন্টস প্রয়োজন এই সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হবে।

সংযুক্তি আপলোডের ক্ষেত্রে প্রতিটি ফাইল এর জন্য সর্বোচ্চ ১০০ কিলোবাইট জায়গা পাবেন। প্রয়োজনীয় ফাইলগুলোই স্ক্যান করে সাইজ ১০০ কিলোবাইটের মধ্যে রাখবেন। তারপরে “+সংযোজন” বাটনে ক্লিক করে আপনার স্ক্যান করা ফাইলগুলো আপলোড করুন।

১ টি ফাইল আপলোডের পরে, File Type থেকে কি ধরনের ফাইল তা উল্লেখ করতে হবে। তারপরে Start বাটনে ক্লিক করে ফাইলটি আপলোড সম্পন্ন করতে হবে। এভাবে করে সবগুলো ডকুমেন্টস সংযুক্ত করুন।

৪.আবেদনকারীর তথ্য প্রদান করুন

এই ধাপে, যে ব্যক্তি জন্ম নিবন্ধন সনদ সংশোধনের জন্য আবেদন করছে, তার তথ্য প্রদান করতে হবে। আবেদনকারীর ব্যক্তির সহিত সম্পর্ক থেকে, জন্ম নিবন্ধন এর ব্যক্তির সাথে আবেদনকারী সম্পর্ক উল্লেখ করতে হবে। যদি জন্ম নিবন্ধনের ব্যক্তি নিজেই আবেদন করে তাহলে “নিজ” সিলেক্ট করবেন।

এখানে আবেদনকারীর নাম এবং ইমেইল এড্রেস বসিয়ে দিতে হবে। তারপরে আবেদনকারীর মোবাইল নম্বর বসিয়ে “ওটিপি পাঠান” বাটনে ক্লিক করুন। কিছু সময়ের মধ্যে মোবাইলে ৬ ডিজিটের একটি কোড নম্বর চলে আসবে, ওটিপি অপশনে কোড নাম্বারটি বসিয়ে “সাবমিট” বাটনে ক্লিক করুন।

৫.আবেদনপত্র প্রিন্ট কপি সংগ্রহ

সাবমিট বাটনে ক্লিক করার সাথে সাথে আমাদের জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের আবেদনটি সফল হয়েছে। এখানে আপনাকে একটি আবেদন পত্রের নাম্বার দেয়া হবে, অবশ্যই সেটি সংগ্রহ করে রাখুন। আবেদনপত্রের প্রিন্ট কপি সংগ্রহ করার জন্য নির্ধারিত পৌরসভা কিংবা ইউনিয়ন পরিষদ অফিসে যোগাযোগ করুন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য আবেদন করার পরে, সরকারি আবেদন ফি পরিশোধ করতে হবে। “ফি প্রদান করুন” বাটনে ক্লিক করে অনলাইনে ই চালানের মাধ্যমে ফি পরিশোধ করতে পারেন। অথবা ব্যাংকে চালানের মাধ্যমে ফি পরিশোধ করতে পারবেন।

পূর্বে আবেদনের পরেই সরাসরি ওয়েবসাইট থেকে নাগরিকরা আবেদনপত্রের প্রিন্ট কপি ডাউনলোড করতে পারতো। কিন্তু সর্বশেষ আপডেটের পরে, শুধুমাত্র নির্বাচন কমিশন অফিসে কর্মরত ব্যক্তিরাই আবেদন পত্রের প্রিন্ট কপি ডাউনলোড করতে পারবে। তাই প্রিন্ট কপি ডাউনলোডের জন্য অবশ্যই ইউনিয়ন পরিষদ কিংবা পৌরসভা অফিসে উপস্থিত হতে হবে।

সংশোধন আবেদন ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

সংশোধিত তথ্যের প্রমাণপত্র যেমন,

  • শিক্ষাগত যোগ্যতা সনদ, 
  • টিকা সনদ, 
  • মেডিকেল সার্টিফিকেট, 
  • পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন/ জাতীয় পরিচয় পত্র, 
  • হোল্ডিং ট্যাক্সের রশিদ ইত্যাদি)
  • এফিডেভিট ( প্রয়োজন ক্ষেত্রে)
  • একাডেমিক সনদ ( প্রয়োজন ক্ষেত্রে)

এগুলো সংযুক্ত করতে হবে কিংবা দাখিল করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন ফি

সংশোধনের ধরনফি (টাকা)
জন্ম তারিখ সংশোধন১০০ টাকা
নাম, পিতা-মাতার নাম এবং ঠিকানা ও অন্যান্য তথ্য সংশোধন৫০ টাকা
তথ্য সংশোধনের পরে বাংলা এবং ইংরেজি ভাষায় জন্ম নিবন্ধন সনদের কপিসম্পূর্ণ ফ্রিতে

Related Articles

9 Comments

  1. আমার জন্ম সনদ অনলাইন হয়নি। আমার ওয়াইফের জন্ম সনদ অনলাইন হয়েছে। কিন্তু আমার ওয়াইফের জাতীয় পরিচয় পত্র ও জন্ম সনদের মধ্যে নাম,তথ্য এবং জন্ম তারিখে যথেষ্ট পার্থক্য রয়েছে। এখন আমার জানার বিষয় হচ্ছে আমার সন্তানের জন্য সনদ কিভাবে করব?

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button